কিডনি ভালো রাখার সহজ উপায়

 আমাদের শরীরে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হচ্ছে কিডনি। আমরা প্রতিদিন যে খাবার গ্রহণ করি বাকি সব খাবার থেকে পুষ্টি উপাদান শরীরে প্রবেশ করি তা সবগুলো উপাদানের কাজে লাগেনা কিছু কিছু উপাদান বাড়তি থেকে যায় কিডনি সে বাড়তি উপাদান গুলো বের করে দেয় যে আমাদের শরীরে থাকতে সাহায্য করে কিন্তু এই কিডনি যদি বিকল হয়ে যায় বা খারাপ হয়ে যায় তাহলে আমাদের নানান সমস্যা দেখা দেয় কিন্তু এই কিডনি রোগ 

আমাদের শরীরে ধীরে ধীরে বাসা বাঁধে যার ফলে আমরা সহজে বুঝতে পারি না যে আমাদের শরীরে কিডনির সমস্যা হয়েছে আর কিডনি আমাদের শরীরের একটু গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ কিন্তু আমরা অনেকে জানিনা যে আমরা কিডনি কিভাবে ভালো রাখবো এজন্যই আর্টিকেলটি তাদের জন্য যারা কিডনি সম্পর্কে ভালো জানে না এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমরা জানবো কিভাবে কিডনি ভালো রাখা যায় কিডনি পরিষ্কার করার নিয়ম তো চলুন জেনে নেওয়া যাক কিডনি ভালো রাখার কিছু নিয়ম কানুন


সূচিপত্র:কিডনি ভালো রাখার সহজ উপায়

কিডনি কি-কিডনি ভালো রাখার সহজ উপায়

আমাদের দেহে অর্থাৎ আমাদের নাভির পিছনে কোমরের দুই পাশে দুটি ছোট ছোট কিডনি থাকে যেগুলোকে আমরা বাংলায় মৃক্ষ বলে থাকি। এ দুইটি কিডনি ১০ থেকে ১২ লক্ষ ন্যাপ ফোন যেটাকে কিডনির ইউনিক বলা হয় যাকে ছাঁকনি যন্ত্র বুঝি।এই যন্ত্র নিয়ে গঠিত এই সাঁকুনি যন্ত্রের কাজ হচ্ছে প্রতিনিয়ত আমাদের শরীরে যে রক্ত প্রবাহিত হয় 
এগুলোকে ফিল্টার করা অর্থাৎ পরিশোধন করা এভাবে প্রায় প্রতি মিনিটে 1000 থেকে 1200 ml রক্ত এই সাঁকুনি যন্ত্র পরিশোধন করে  এর মাধ্যমে দৈনিক ১৮০ লিটারের মতো যে ছাঁকনি অর্থাৎ পরিস্রাবণ তৈরি করে তার এক শতাংশ মাত্র আপনাদের  পেশাবের মাধ্যমে বের করেদি এই পেশাবের মাধ্যমে আমাদের শরীলে যে বজ্র পদার্থগুলো তৈরি হয় তা বের করে দিলে সক্ষম হয়

কিডনির কাজ কি-কিডনি ভালো রাখার সহজ উপায়

আমাদের শরীরে যে ক্রিয়া বিক্রিয়াগুলো ঘটছে এর মাধ্যমে বিষাক্ত পদার্থ তৈরি হয় বিশেষ করে ইউরিন যা প্রসবের মাধ্যমে কিডনি আমাদের শরীর থেকে এই বিষাক্ত পদার্থ গুলো বের করে দাও কিডনির আরও কাজ হল আমরা প্রতিনিয়ত যে খাবারগুলো খাচ্ছি এতে অপ্রয়োজনীয় অনেক কিছু পদার্থ থাকে যেগুলো কিডনি ইউরিন এর মাধ্যমে আমাদের প্রসাবের মাধ্যমে শরীর থেকে বের করে দেয় এছাড়াও আমরা যে মাত্র অতিরিক্ত খাবার খাচ্ছি যেমন পানি বিশেষ করে লবণ ভিটামিন খাচ্ছি আমাদের শরীরে যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু রেখে কিডনি তা প্রস্রাবের মাধ্যমে আমাদের শরীর থেকে বের করে দেয় যার জন্য দেখা যাচ্ছে যে আমরা বেশি করে পানি খাচ্ছি কিন্তু 

আমাদের শরীরের যতটুকু পানির প্রয়োজন কিডনি ততটুকু রেখে বাকি পানি বের করে দেয় আবার যখন দেখা যায় আমাদের শরীরে পানি শূন্যতা দেখা দেয় তখন কিডনি তে থাকা রিজার্ভ পানি দিয়ে আমাদের শরীরে পানি শূন্যতা পূরণ করে কিডনি এ কাজ ছাড়া আরো প্রয়োজনীয় বেশি কাজ করে থাকে সেগুলো আমাদের শরীরে যে রক্তের কণিকা তৈরি করার জন্য এক ধরনের হরমোনের প্রয়োজন হয় আর এই হরমোন কিডনি তৈরি করে থাকে এছাড়া ব্লাড প্রেসার মেন্টেন করার ক্ষেত্রেও কিডনি অনেক ভূমিকা পালন করে তাছাড়া আমাদের হাড্ডি তৈরি বা মজবুত করার জন্য যে ভিটামিন ডি এর প্রয়োজন হয় তা কিডনি তৈরি করে থাকে এভাবেই আমাদের দেহে ছোট দুইটা কিডনি অনেক কাজ করে থাকে

কিডনি ভালো রাখার উপায়

কিডনি আমাদের দেহে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হওয়ায় কিডনির প্রতি আমাদের যত্ন নিতে হবে কিডনি যাতে ভালো থাকে সেদিকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে কি খেলে কিডনি ভালো থাকে কি খাওয়া যাবে কি খাওয়া যাবেনা সে বিষয়ে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে তো চলুন কিডনি ভালো রাখার কিছু উপায় জেনে নেওয়া যাক

1 পানি পানঃ পানির অপর নাম জীবন কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের পর্যাপ্ত পরিমান পানি এবং এই পানি বিশুদ্ধ এবং নিরাপদ হতে হবে কারণ পানি পান করার মাধ্যমে কিডনি আমাদের শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ প্রসবের মাধ্যমে বের করে দেয় এবং আমাদের শরীরে যে পানি শূন্যতা হয় তা কিডনি ঠিক করে দেয় এর জন্য কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের বেশি বেশি পানি পান করতে হবে

2 .ওজন নিয়ন্ত্রণঃ বাড়তি ওজন যেমন আমাদের শরীরের জন্য খারাপ তেমনি কিডনির জন্য খারাপ তাই আমাদের ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে অতিরিক্ত ওজন কিডনির নানান সমস্যা হতে পারে

3. সুষম খাদ্যঃ কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের সুষম খাদ্য গ্রহণ করতে হবে এই সুষম খাদ্য গ্রহণের ফলে আমাদের শরীরের নানান পুষ্টির পূরণ করবে এবং কিডনি ভালো থাকবে কিডনি ভালো রাখতে সুষম খাদ্যের কোন বিকল্প নেই

4. নিয়মিত ব্যায়াম করাঃ কিডনি ভালো রাখতে আমাদের নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে অন্তত প্রতিদিন ৩০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে সময় ধরে হাঁটতে হবে তাছাড়া শারীরিক পরিশ্রম করতে হবে তাহলে আমাদের কিডনি অনেক ভালো থাকবে

5. পর্যাপ্ত ঘুম ও মানসিক চাপঃ কিডনি ভালো রাখতে আমাদের পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে এবং মানসিক চাপ কমাতে হবে পর্যাপ্ত পরিমান না ঘুমালে আমাদের কিডনির নানান সমস্যা দেখা দেয় তাই কিডনিকে ভালো রাখতে হলে আমাদের পর্যাপ্ত পরিমান ঘুম এবং মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকতে হবে তাহলে কিডনি ভালো থাকবে

6. মেডিসিন নিয়ন্ত্রণঃ কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের চিকিৎসার পরামর্শ অনুযায়ী মেডিসিন বা ওষুধ খেতে হবে অযথা কোনো ওষুধ খাওয়া যাবে না এতে আমাদের কিডনির নানান সমস্যা দেখা দেয় বিশেষ করে ব্যাথা নাশক ওষুধ আমাদের কিডনির জন্য মারাত্মক ক্ষতি করে তাই আমরা যতটুকু সম্ভব ওষুধ খাওয়া থেকে দূরে থাকবো কিংবা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন করব এতে আমাদের কিডনি অনেক ভালো থাকবে

কিডনি ভালো আছে কি না বোঝার উপায়

কিডনি আমাদের দেহের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ তাই আমাদের সব সময় কিডনির দিকে খেয়াল রাখতে হবে তাই কিডনি ভালো আছে কিনা তা নিজে নিজে বোঝার কিছু উপায় আছে প্রথমত উপায় আপনাকে কোন ক্লিনিকে বা হাসপাতালে গিয়ে কিডনি টেস্ট করার মাধ্যমে জানতে পারবেন কিডনি ভালো আছে কিনা এর জন্য আপনাকে দুইটা টেস্ট করতে হবে একটি হলো জি এফ আর অথবা সিসিআর টেস্ট করা এই দুইটা টেস্টের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনার কিডনি ভালো আছে কিনা তাছাড়া আপনি চলার ক্ষেত্রেও অনেক সময় বুঝতে পারবেন আপনার কিডনি ভালো আছে কিনা আপনি যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করেন এবং তা যদি

আপনার দেহের পর্যাপ্ত পরিমাণ পানির চাহিদা রেখে কিছু বজ্র পদার্থ ভালোভাবে বের করে দেয় তাহলে বুঝবেন আপনার কিডনি ভালো আছে তাছাড়া আপনার শরীরের যদি কোন এনার্জি লেভেল ভালো থাকে এবং কোন সমস্যা না হয় তাহলে বুঝবেন আপনার কিডনি ভালো আছে তাছাড়া আপনার খাবারে যদি অরুচি না আসে তাহলে বুঝবেন আপনার কিডনি ভালো আছে এভাবে আপনি আপনার নিজের কিডনি ভালো আছে কিনা তা বুঝতে পারবেন

কিডনির সমস্যা বোঝার উপায়

আপনি নিজে নিজেই ঘরে বসেই আপনার কিডনির কোন সমস্যা হয়েছে কিনা তা বুঝতে পারবেন কারন কিডনি আমাদের দেহের একটু গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ কিডনি যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে আপনার দেহের অনেকটা পরিবর্তন আসবে

1. আপনার দেহে ও অনেকটা ফুলে যাবে যদি আপনার কিডনির সমস্যা হয় তাছাড়া আপনার এনার্জি লেভেল কমে আসবে সমস্যার কারণে
2. কিডনির কোন সমস্যা হলে আপনার মুখে অরুচি আসবে এবং বমি বমি ভাব হবে এটা যদি হয় তাহলে বুঝবেন আপনার কিডনিতে কোন সমস্যা হয়েছে

3. কিডনিতে সমস্যা হলে কিডনির পাশে অর্থাৎ আপনার পেটের নিচে ব্যাথা অনুভব হবে এই ব্যথা যদি হয় তাহলে আপনি বুঝবেন আপনার কিডনি কোন সমস্যা হতে পারে

4. আপনি যখন পানি পান করবেন তখন যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি ফিল্টার না হয় এবং প্রসাবের ধার দিয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রসাব বের না হয় তাহলে বুঝবেন আপনার কিডনির সমস্যা হয়েছে

5. আপনার কিডনির কোন সমস্যা হলে আপনার এনার্জি লেভেল একদম কমে আসবে অলসতার ভাব বেড়ে যাবে কোন কাজ করতে মন চাইবে না এসব সমস্যা দেখা দিলে বুঝবেন আপনার কিডনির কোন সমস্যা হয়েছে

কিডনি সুস্থ রাখার কিছু নিয়ম

কিডনি আমাদের দেহের একটু গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ তাই আমাদের কিডনির দিকে খেয়াল রাখতে হবে কিডনি সুস্থ রাখার জন্য আমাদের কিছু নিয়ম মানতে হবে তাহলে আমাদের কিডনি অনেকটা সুস্থ থাকবে অনেকেই শোনা যায় কিডনি রোগের সমস্যার রোগী কিন্তু আমরা যদি কিছু নিয়ম মেনে চলি তাহলে আমাদের দেহের গুরুত্বপূর্ণ কিডনি খুব সহজে ভালো রাখা যাবে সে নিয়ম গুলো হলো

1 কিডনি সুস্থ রাখতে হলে পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে কারণ পানি কিডনিকে সচল রাখতে এবং কিডনির স্বাভাবিক কার্যক্রমে সাহায্য করে একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষকে দৈনিক সাত থেকে আট গ্লাস পানি পান করতে হবে এতে কিডনি অনেকটা ভালো থাকবে

2. কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের ধূমপান বর্জন করতে হবে কারণ ধূমপান আমাদের কিডনির জন্য মারাত্মক ক্ষতি করে এর জন্য এর জন্য কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের ধূমপান খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে

3. কোমল পানি কিডনির জন্য খুবই ক্ষতিকারক সাধারণত আমরা ক্লান্তি দূর করার জন্য কোমল পানি পান করি কিন্তু এ কোমল পানি আমাদের কিডনির জন্য মারাত্মক খারাপ তাই যতদূর পারা যায় এ পানি পান করা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে তাহলে আমাদের কিডনি ভালো থাকবে

4. অতিরিক্ত লবণ খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে কারণ অতিরিক্ত লবণ আমাদের কিডনির জন্য মারাত্মক প্রভাব ফেলে বিশেষ করে কাঁচা লবণ এটি কিডনির জন্য খুবই মারাত্মক এবং ক্ষতিকারক তাই যতদূর পারা যায় আমাদের কাঁচা লবন খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে

5. কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের পর্যাপ্ত পরিমাণ শাকসবজি খেতে হবে এই শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন রয়েছে যা আমাদের কিডনির জন্য খুব ভালো তাই কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের প্রচুর পরিমাণ শাকসবজি খেতে হবে

6. কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের প্রচুর পরিমাণ ফল খেতে হবে ফলে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন মিনারেল আয়রন এবং প্রোটিন যা আমাদের কিডনি সচল রাখতে সাহায্য করে এর জন্য নিয়মিত আমাদের ফল খেতে হবে

কিডনি রোগের ঝুঁকিতে আছে যারা

1 ডায়াবেটিসঃ যাদের শরীরে মাত্রা অতিরিক্ত ডায়াবেটিস আছে তারা কিডনি রোগের ঝুঁকিতে আছে সবচেয়ে বেশি তাই আমাদের কিডনি ভালো রাখতে হলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে হবে

2. উচ্চ রক্তচাপঃ যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে তারা কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি আছে তাই আমাদের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে

3. ব্যাথা নাশক ওষুধঃ যারা দীর্ঘকাল ব্যথা নাশক ওষুধ খায় তাদের কিডনির সমস্যা হয় ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি এর জন্য ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া বেতনের ওষুধ না খাওয়াই ভালো

কিডনির সমস্যা হলে কোথায় ব্যথা হয়

কিডনির সমস্যা হলে এটি পেছনের পাজরের নিচের অংশে ব্যাথা হয় এ ব্যথা নড়াচড়া করে কোমরে দুই পাশে যেতে পারে এ ব্যাথা হলে কোন কাজ ওঠা বসা কোন কিছুতেই আরাম মিলে না শুধু ব্যথা হলে যে কিডনির সমস্যা হয় তা নয় কিডনির সমস্যা আরও লক্ষণ আছে সেগুলো আলোচনা করা হয়েছে সেগুলো আপনি চাইলে পড়ে দেখতে পারেন

কিডনির ভালো রাখার ব্যায়াম

1.কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে প্রতিদিন সকালে উঠে আমাদের অন্তত 30 মিনিট হাঁটতে হবে এতে আমাদের কিডনি সচল থাকবে

2. কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের নিয়মিত সাঁতার কাটতে হবে কারণ সাঁতার কাটলে আমাদের দেহের অনেক ক্যালরি ক্ষয় হয় এবং আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এর জন্য কিডনি ভালো রাখতে আমাদের সাঁতার করতে হবে

3. কিডনি ভালো রাখতে হলে আমাদের নিয়মিত সাইকেল চালাতে হবে সাইকেল চালানোর ফলে আমাদের শরীর থেকে যে ঘাম বের হবে দূষিত বজ্র বের হয়ে যাবে এতে আমাদের কিডনি অনেকটা ভালো থাকবে

শেষ কথাঃকিডনি ভালো রাখার সহজ উপায়

এ আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা কিডনি কি কিভাবে কাজ করে? কিডনি ভালো রাখার উপায় কিডনি নষ্ট হয়ে গেলে বোঝার উপায় আরো নানান বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন এবং আরো কিছু জানা থাকলে তা কমেন্ট করে জানিয়ে দিন

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪