গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে জানুন ?

 গুগল ম্যাপ বর্তমান আমাদের জন্য ভার্চুয়াল হিসেবে কাজ করে। আপনে কোন এক অচেনা রাস্তায় যাবেন সেখানকার দূরত্ব কত রাস্তার জ্যাম আছে কি না তা আমরা গুগল ম্যাপে দেখতে পাই। গুগল ম্যাপ আমাদের চলার পথকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। আপনি কোন এক রাস্তায় হারিয়ে গিয়েছেন সেখান থেকে আপনে কিভাবে ফিরবেন তা গুগল ম্যাপের সাহায্যে দেখে নিচ্ছেন কিন্তু কখনো কি ভেবে দেখেছেন। গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে । যদি না জেনে থাকেন গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে । তাহলে এই আর্টিকেল টি আপনার জন্য কারন আমরা এই আর্টিকেলে গুগল ম্যাপ সম্পর্কে জানব তো চলুন গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে তা জেনে নেওয়া জাক।


সূচিপত্রঃগুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে

গুগল ম্যাপ কি- গুগোল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে

গুগল ম্যাপ হল লোকেশন ট্র্যাকিং এবং লোকেশন জানার জন্য একটি জনপ্রিয় অ্যাপ। আর এই অ্যাপস ডেভলপ করেছে গুগল কর্পোরেশন। যাদের আমরা ইউটিউব জিমেল  প্লে স্টোর বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস এর কারণে চিনে থাকি। এছাড়া এই গুগল  কোম্পানি সার্চ ইঞ্জিনের কারণে আমাদের কাছে খুব জনপ্রিয় । এই গুগল ম্যাপ মানুষ লোকেশন ট্র্যাকিং করার জন্য একটি ম্যাপ অনলাইনে গুগল ম্যাপ হিসেবে প্রকাশ করে। যে কোন মোবাইল ফোন  থকে জিপিএস অন করার মাধ্যমে খুব সহজে জেনে নেওয়া যায় আপনার অবস্থান কোথায় এবং আপনি কোথায় অবস্থান করছেন।

গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে

গুগল ম্যাপ কাজ করে থাকে ডাটা কালেকশনের মাধ্যমে। আর ডাটা কালেকশন কাজগুলো গুগল একা করে না । বিভিন্ন এজেন্স এর মাধ্যমে সংগ্রহ করে থাকে সেগুলো হল
স্যাটেলাইট
স্যাটেলাইট এ তোলা ছবি সংগ্রহ করে গুগল এবং সেটি বিশ্লেষণ করে গুগল ম্যাপ সংযোগ করে। এছাড়া বিভিন্ন ছবি পেতে গুগল ম্যাপ কে হেল্প করে স্যাটেলাইট।
বেস ম্যাপ পার্টনার প্রোগ্রাম
গুগল ম্যাপ অন্য প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগা যোগ করে ডাটা সংগ্রহ করে থাকে। যেমন নতুন রাস্তা কোন স্থান পরিবহন রাস্তা সময় ভাড়া জ্যাম ইত্যাদি সংগ্রহ করে গুগলকে সাহায্য করার জন্য রয়েছে হাজার হাজার সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

 স্ট্রিট ভিউ
তথ্য সংগ্রহের পাশাপাশি যে কোন এরিয়ার ছবি সংগ্রহের জন্য গুগলের রয়েছে জিপিএস কো অর্ডিনেট কার এর সাহায্যে ৩৬০ ডিগ্রী এর মধ্যে ছবি সংগ্রহ করে এবং ট্রাফিক সিগন্যাল রাস্তার নাম সংযোজন করে গুগল ম্যাপ। এভাবেই একটি টোটাল  স্ট্রিট  ভিউ গুগল ম্যাপ তৈরি করে।
লোকেশন সার্ভিস
গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে। তা আপনারা মোবাইল বা স্মার্টফোনে রয়েছে। কারণ মোবাইল বা স্মার্টফোন আপনার যতটুকু না প্রয়োজন তার চেয়ে বেশি প্রয়োজন গুগল  এর। কারণ গুগল আপনার ফোন থেকে লোকেশন ট্যাগ করে এবং বিশ্লেষণ করে গুগল ম্যাপে পাঠায়।
গুগল ম্যাপ মেকার
এই কাজটি আপনিও করতে পারেন। গুগল মেকার মূলত গুগল ব্যবহারকারীর জন্য। গুগল ম্যাপ এ আপনিও যেকোনো ছবি সংযুক্ত করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে গুগল ম্যাপ এ গিয়ে মাই কান্ট্রি ভিউশন থেকে আপনার মতামত সংযুক্ত করলে আপনি গুগল ম্যাপ মেকার অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবেন। গুগল ম্যাপ যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০০৫ সাল থেকে ৬০% এর বেশি মানুষ একবার হলেও গুগল ম্যাপ ব্যবহার করছে। দিন দিন এর চাহিদা বেড়ে যাচ্ছে।
হেলিকপ্টারের সাহায্যে থ্রি ডি ভিউ নিয়ে
আমার মনে করুন যেকোনো একটি এলাকার 10 তালা বিল্ডিং  আছে। এখন স্যাটেলাইট ক্যামেরার মাধ্যমে এই ভিউ টা ভালো হবে না । সেজন্য হেলিকপ্টারের মাধ্যমে থ্রি ডি ভিউ নিয়ে এই তথ্য সংগ্রহ করা হয়।
ক্রাউডসোর্সিং
গুগল ম্যাপ ক্রাউডসোর্সিং খুব গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ করে উন্নত শীল দেশে যেসব দেশে বিভিন্ন বিষয়ে সরকার নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এবং গুগল ম্যাপ সরাসরি সেখান থেকে ডাটা সংগ্রহ করতে পারে না। শুরুতেই গুগল ম্যাপ এমন ছবিটা ছিল যার সাহায্যে ব্যবহার কারি ম্যাপ এডিট করতে পারতো কিন্তু কিছু কারণে এই সুবিধা তুলে নেওয়া হয়। স্থানীয় গাইড সংস্থাগুলো বাড়তি সাহায্য করার জন্য এটা কিছু সংযোজন করতে পারে।
 ক্রাউডসোর্সিং মানে হল ধরুন আপনি এক জায়গায় জ্যামে আছেন এবং আপনার ফোনে ইন্টারনেট চালু আছে। এখন আপনি চলমান না স্থির একইভাবে আরো অনেক জায়গায় জ্যামে আটকা থাকতে পারেন কি না। তখন গুগল সেখানকার রাস্তায় থাকা মানুষের ডাটা এনালাইসিস করে দেখাবে এভাবেই গুগল গাইডের তথ্য নিয়ে ম্যাপ বিভিন্ন তথ্য দেখায়। 
ব্যবহারকারীদের থেকে অবস্থান ডাটা
আমরা যখন কোন মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কোন স্থানের অবস্থান জানতে চাই তখন আমরা গুগলকে সাহায্য করে থাকি। যাতে সে আমার ডাটা পেতে পারে। গুগল আগে ট্রাফিক ক্যামেরা থেকে ডাটা সংগ্রহ করত ট্রাফিক সম্পর্কে অনেক কিছু জানার জন্য কিন্তু এখন এর চেয়ে উন্নত পদ্ধতি বের হয়ে গেছে। এখন গুগল গতি অবস্থান বের করতে পারে সব ধরনের স্মার্টফোন যেসব ফোন গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে থাকে। নতুন জানা ডাটা গুলো পুরনো ডাটা সাথে মিলে দেখা হয় সঠিক তথ্য যাচাই করার জন্য। এর জন্য আমরা রাস্তার ট্রাফিক সম্পর্কে সঠিক তথ্য পেয়ে থাকে

গুগল ম্যাপের বৈশিষ্ট্য

গুগল ম্যাপের সাহায্যে যেমন কাছের কফি শপের ঠিকানা অথবা হাসপাতালের ঠিকানা জানা যায়। তেমনি এর সাহায্যে সৌরজগতের সম্পর্কেও জানা যায়। নিচে গুগল ম্যাপ কি কি ধরনের কাজ করে থাকে তা সম্পর্কে দেওয়া হল।
নেভিগেশন
গুগল ম্যাপে কোন জায়গায় রুট প্ল্যান দেখতে চাইলে এটি তা খুব সহজে দেখিয়ে দেয় এবং কোন যানবাহন ব্যবহার করে কত সময় সেখানে পৌঁছানো যাবে সেটিও নির্দেশ করে থাকে । এছাড়া ভয়েস নেভিগেশনের সাহায্যে ভয়েস ডিরেকশনও দেওয়া যায়।
রিয়েল টাইম ট্রাফিক আপডেট
টাফিক জ্যামে আটকে থাকা খুব বিরক্ত কর। গুগল ম্যাপের সাহায্যে দেখা যায় যে কোন পথে ট্রাফিক বেশি কোন পদ দিয়ে গেলে কত বেশি সময় লাগতে পারে। এবং কোন পদ দিয়ে গেলে কম সময় লাগবে সে দিক নির্দেশনা দেওয়া থাকে।
রাস্তার দৃশ্য
কোন রাস্তার ছবি দেখা যায় গুগল স্ট্রিট ভিউতে এর সাহায্যে খুব কাছ থেকে যেভাবে সম্ভব ছবি তুলে গুগলে ব্যবহারকারীর সামনে তুলে ধরে। গুগল ম্যাপ বিভিন্ন স্থানে ৩৬০ ডিগ্রী প্যানোরমিক ছবি তুলে থাকে।
ব্যবসা তালিকা
গুগল ম্যাপ কোন কোম্পানির তথ্য নেওয়া এখন খুব সহজ । কোন স্থানে বিভিন্ন অ্যাডভারটাইজ আমরা ঘরে বসে দেখতে পারি । এবং সেই স্থান সম্পর্কে ধারণা নিতে পারি। সবচেয়ে সুবিধা হল কোন ধরনের রেস্টুরেন্ট হাসপাতাল বা কোনো প্রতিষ্ঠান বন্ধ বা খোলা থাকার সময় আমরা গুগল থেকে জানতে পারি। সেটা ভালো না খারাপ সে প্রতিষ্ঠানের ছবি আমরা দেখতে পারি।
গ্লোব ভিউ
গুগল ম্যাপে গ্লোব ভিউ ওপেন করলে সেখানে পৃথিবীকে গ্রহ হিসেবে দেখায়। সেখানে জুম ইন জুম আউট করে কোন স্থান দেখা যায় । এটা অবশ্যই ম্যাপেও দেখা যায় কিন্তু ম্যাপে  ২ডি এত সুন্দর করে ছবি দেখা যায় না গ্লোব ভিউ সেটা দেখা যায়।

শেষ কথা

আশা করি গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে এই প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন। কারন আমরা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জানলাম গুগল ম্যাপ কি ভাবে কাজ করে। এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লাগবে শেয়ার করুন। এবংগুগল ম্যাপ সম্পর্কে আরো কিছু জানার থাকলে তা কমেন্ট করে জানিয়ে দিন


























এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪